May 19, 2022

বাড়ির পাশে ক্ষেত থেকে বাদাম তুলতে গিয়ে আজ বৃহস্পতিবার সকাল ১১টায় বজ্রপাতে ঘটনাস্থলেই তিন স্কুল ছাত্রের মৃত্যু হয়েছে। এ সময় আহত হয়েছে আরো আটজন। তাদের মধ্যে চারজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। নিহত ও আহতরা সবাই সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলার বাদাঘাট ইউনিয়নের সুন্দর পাহাড়ি গ্রামের বাসিন্দা।নিহতরা হলো সুন্দর পাহাড়ি গ্রামের আব্দুল হেকিমের মেয়ে তাওহীদা বেগম (সপ্তম শ্রেণি) ও ফজু রহমানের ছেলে আমিরুল ইসলাম। সে ষষ্ঠ শ্রেণির শিক্ষার্থী ছিল। এ ছাড়া নিহত একই এলাকার আব্দুল আজিজের মেয়ে রিপা বেগম (পঞ্চম শ্রেণি)। তারা ওই এলাকার ঘাগটিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ছিল। এ ঘটনায় গুরুতর আহতরা হলো আলীজা (৯), শেফা আক্তার (৭), সাফিয়া (৭) ও হবি রহমান (৪০)। তাদের সবাইকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মন্টু কুমার সরকার জানান, সকাল ১১টায় বাড়ির পাশে জমি থেকে বাদাম তুলতে গিয়ে বজ্রপাতে তিনজন নিহত ও আটজন আহত হয়েছে। নিহতের সবাই এবং আহতদের অধিকাংশই ঘাগটিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী।তাহিরপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসা কর্মকর্তা ডা. ফয়েজ আহমদ জানান, আহতদের অবস্থা আশঙ্কাজনক। তাদেরকে উন্নত চিকিৎসার জন্য জেলা শহরে পাঠানো হচ্ছে।তাহিরপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. রায়হান কবির নিহত ও আহতের ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, 'আমি ঘটনাস্থলে যাচ্ছি। প্রশাসনের পক্ষ থেকে নিহত ও আহতদের পরিবারের কাছে সরকারি সহায়তা তুলে দেওয়া হবে। '

নবীগঞ্জ পৌর এলাকার সালামত পুরের বাসিন্দা তারেক মিয়া ষড়যন্ত্র মূলকভাবে ইয়াবা দিয়ে ফাঁসানোর প্রতিবাদে নবীগঞ্জ পৌর এলাকার সালামতপুর গ্রামবাসীর উদ্যোগে এক বিশাল মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১১টায় নবীগঞ্জ পৌর এলাকার সালামতপুর এলাকার সচেতনমহল কর্তৃক আয়োজিত মানববন্ধনে আমির হোসেনের সঞ্চালনায় উপস্থিত ছিলেন, পৌর কাউন্সিলর কবির মিয়া,সাবেক কাউন্সিলর রুহুল আমিন, নিয়াওর মিয়া, কাইয়ুম মিয়া,ওয়াহিদ মিয়া,মুহিন মিয়া,নুনু মিয়া শিকন্দর মিয়া, রেজ্জাক মিয়া, করিম মিয়া,কালাম মিয়া, রায়হান মিয়া, কামান্ডো খালিক, রুয়েল মিয়া, এহিয়া খান, তালুকদার মিয়া, বেনু মিয়া,আফিল উদ্দিন, আবজল, কাজল মিয়া,অজুদ মিয়া, সুলেমান মিয়া,হেলাল আহমদ,হুমায়ুন খান, খালেদ আহমদ,মিঠন মিয়া রাশেদ মিয়া,আলমগীর মিয়া শিপন মিয়া,জাবেদ মিয়া, জাকারিয়া আহমদ,আজাদ,শাহেদ  আলী,লিটন মিয়া,শিপন,হোসেন মিয়া,রাজু আহমেদ,জুবেদ,আহমদ, মতলিব মিয়া, শাহিন আহমদ,আক্কল মিয়া,সানু মিয়া,নুরুল,সোহাগ,সাবলু,রাসেল,পাপ্পু,মামুন,রিপন আহমদ,শিপন,শাহ জামাল, নুরুল আমিন,চুনু মিয়া, শুভ, কাদির,সোহাগ,নয়ন,শান্ত,সাজু,ইউনুস আলী,ইয়াছিন,প্রমুখ। উল্লেখ্য গত  সোমবার দুপুরে  শেরপুর রোডের সালামতপুর এলাকায় তারেক মিয়ার লন্ডন প্রবাসী দুলা ভাই মৃত হাজ্বি সিদ্দেক মিয়ার বাসায় কেয়ারটেকার ছিলেন। কিছুদিন পূর্বে সিদ্দেক মিয়ার প্রবাসী ৩ ছেলের  মধ্যে ওই বাসা নিয়ে বিরোধ দেখা দেয়। এরই জের ধরে  তাকে এই মিথ্যা মাদক মামলা ফাসানো হয়েছে বলে দাবি সচেতন মহলের। বক্তরা বলেন তারেক মিয়া সালামতপুর এলাকায় দীর্ঘদিন ধরে পরিবার নিয়ে বসবাস করে আসছে। তিনি  মাদক  ব্যবসা বা সেবন কারী নয় সে একজন ভালো মনের মানুষ হিসাবে আমাদের  এলাকায় পরিচিত। তাকে মিথ্যা সাজানো ইয়াবা দিয়ে ফাসানোর ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিছেন বক্তরা। বক্তরা আরো বলেন উক্ত নাটকীয় সাজানো মাদক মামলা থেকে তারেক মিয়ার মুক্তির দাবি জানান।

ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের নবীগঞ্জ উপজেলার পানিউমদা ইউনিয়নের রোকনপুর নামক স্থানে বাস সিএনজির মুখোমুখি সংঘর্ষে ২জন নিহত হয়েছে।মঙ্গলবার দুপুরে এই মর্মান্তিক সড়ক দুর্ঘটনাটি ঘটে।হাইওয়ে পুলিশ সূত্রে জানা যায়  উল্লখিত স্থানে ঢাকা গামী বাস এম আর পরিবহন  (ঢাকা মেট্রোঃ ব- ১৫ -৭৫৫১) ধাক্কায় সিএনজি (মৌলভীবাজার থ ১১-৪৮৬৫)থাকা চালক রোকনপুর গ্রামের জহুর আলীর পুত্র আরশ আলী (৩৫) ও যাত্রী একই গ্রামের মৃত গোলাপ আলীর স্ত্রী নুরাইয়া (৪০) নিহত হন।দুর্ঘটনার বিষয়টি নিশ্চিত করে শেরপুর হাইওয়ে থানার  অফিসার ইনচার্জ পরিমল দেব বলেন,দুর্ঘটনায় কবলিত গাড়িটি আটক করে শেরপুর হাইওয়ে থানায় নিয়ে আসা হয়।

সিলেট-ঢাকা মহাসড়কের নবীগঞ্জ উপজেলার গজনাইপুর ইউনিয়নের মুশকিল হাসান মাজার নামক সড়ক দুর্ঘটনায়  ফাহিম আহমদ (২৫)  নামের এক যুবক নিহত হয়েছে৷ সোমবার দুপুরে মর্মান্তিক দুর্ঘটনাটি ঘটে। অপর একজন আহত হয়েছেন। হাইওয়ে পুলিশ সূত্রে জানা যায় উল্লখিত স্থানে সিলেট গ্রামী একটি মালবাহী ট্রাক (ঢাকা মেট্রা -ট ১২-০৩১৪) ধাক্কায় ধান মাড়াই কাজের নিয়জিত হারভেস্টার গাড়ির চালক গজনাইপুর ইউনিয়নের সাতাইহাল মোাকাম পাড়া গ্রামের সাবেক ইউপি সদস্য চুনু মিয়ার পুত্র ফাহিম আহমেদ নিহত হন।দুর্ঘটনার বিষয়টি নিশ্চিত করে শেরপুর হাইওয়ে থানার অফিসার ইনচার্জ পরিমল দেব বলেন,দুর্ঘটনায় কবলিত গাড়িটি আটক করে শেরপুর হাইওয়ে থানায় নিয়ে আসা হয়।

পাহাড়ি ঢল ও টানা বৃষ্টিতে এখন বন্যা পরিস্থিতি সিলেটের গোয়াইনঘাটে। প্রধান সড়কগুলো ডুবে যাওয়ায় উপজেলাটি যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন। ঝুঁকি নিয়ে পথ চলছে এলাকার লোকজন। টানা বৃষ্টি ও পাহাড়ি ঢলে বন্যাকবলিত হয়ে পড়েছে সিলেট সদরসহ জেলার ছয়টি উপজেলা। তলিয়ে গেছে শত শত হেক্টরের ধান। সরকারি-বেসরকারি অফিস, বাসাবাড়ি, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানসহ বিভিন্ন বাজার জলমগ্ন হয়েছে। কানাইঘাট ও গোয়াইনঘাট উপজেলা সিলেট সদর থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে।কানাইঘাট উপজেলার ৯টি ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রাম প্লাবিত হয়েছে। সিলেট সদর উপজেলার সঙ্গে যোগাযোগের প্রধান সড়ক সিলেট-দরবস্ত-চতুল-কানাইঘাট সড়ক, কানাইঘাট-গাছবাড়ী গাজী বোরহান উদ্দিন সড়ক, কানাইঘাট-সুরইঘাট সড়ক ও কানাইঘাট-শাহবাগ-জকিগঞ্জ সড়ক তলিয়ে গেছে। বেশির ভাগ বাজার জলমগ্ন। ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান গুলোর মালামাল। লক্ষ্মী প্রাসাদ পূর্ব, লক্ষ্মী প্রাসাদ পশ্চিম, দিঘিরপার পূর্ব, সাতবাক, সদর, বড় চতুল, দক্ষিণ বানিগ্রাম, ঝিংগাবাড়ী ও রাজাগঞ্জ ইউনিয়নের নদী তীরবর্তী অর্ধশতাধিক গ্রাম প্লাবিত হয়েছে। বেশির ভাগ এলাকা বিদ্যুিবহীন হয়ে পড়েছে। মানুষ ঘর থেকে বের হতে পারছে না। স্বাভাবিক কর্মকাণ্ড বাধাগ্রস্ত হচ্ছে। গ্রামীণ রাস্তাগুলোতে নৌকা চলাচল করছে। বোরো ধানের পাশাপাশি আউশের বীজতলা তলিয়ে যাওয়ায় কৃষক বিপাকে পড়েছেন। গত রবিবার কানাইঘাটে সুরমা নদীর পানি বিপত্সীমার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছিল বলে পানি উন্নয়ন বোর্ড (পাউবো) জানায়। লক্ষ্মীপ্রসাদ পশ্চিম ইউনিয়নের কুওরঘড়ি সুরমা ডাইকে (বাঁধ) ভয়াবহ ভাঙন দেখা দিয়েছে। উপজেলার শতাধিক মৎস্য খামার, ফিশারি ও পুকুর বন্যার পানির সঙ্গে মিশে মাছের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। কানাইঘাটের পাত্রমাটি গ্রামের জামিল আহমদ জানান, তাঁদের ঘরে পানি ঢুকে গেছে। দুই শিশু, মা-বোন ও স্ত্রীকে নিয়ে অন্যত্র আশ্রয় নিয়েছেন তিনি।উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সুমন ব্যানার্জি বলেন, বন্যাকবলিতদের জন্য ১৭টি আশ্রয়ণকেন্দ্র প্রস্তুত রাখা হয়েছে। জেলা প্রশাসন থেকে পাওয়া ১৯ মেট্রিক টন চাল ক্ষতিগ্রস্ত ইউনিয়নগুলোতে বণ্টন করা হয়েছে।সিলেট সদরের সঙ্গে যোগাযোগের অন্যতম সড়ক সারি-গোয়াইনঘাটের বিভিন্ন অংশ পানিতে তলিয়ে যাওয়ায় সড়ক যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। পূর্ব জাফলং, মধ্য জাফলং, পূর্ব আলীরগাঁও, পশ্চিম আলীরগাঁও, পশ্চিম জাফলং, রুস্তুমপুর, ডৌবাড়ী, তোয়াকুল ইউনিয়নের বেশির ভাগ এলাকাসহ উপজেলার সব কটি ইউনিয়নের নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে। গ্রামীণ জনপদের বেশির ভাগ সড়ক তলিয়ে গেছে। তলিয়ে গেছে কৃষকের পাঁচ শতাধিক হেক্টর জমির বোরো ধান ও ২১ হেক্টর আউশ ধানের বীজতলা। ঘরবাড়িতে পানি ঢুকে পড়ছে। হাটবাজার ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্লাবিত হয়েছে।গোয়াইনঘাট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তাহমিলুর রহমান  বলেন, গতকাল বৃষ্টি না থাকলেও আবহাওয়া দপ্তর বলেছে, আগামী কয়েক দিন টানা বৃষ্টি হবে। বিষয়টি খুবই শঙ্কার। তবে ত্রাণ বিতরণ চলছে।জেলার জকিগঞ্জ উপজেলায় টানা বর্ষণ এবং  পাহাড়ি ঢলে তলিয়ে গেছে বেশ কয়েকটি গ্রাম। পানিবন্দি হয়ে পড়েছে কয়েক হাজার মানুষ। উপজেলার বারহাল, মানিকপুর, কাজলসার ইউপিসহ বিভিন্ন এলাকায় সুরমা ও কুশিয়ারা নদীর ডাইক ভেঙে ও উপচে পড়া পানি লোকালয়ে প্রবেশ করছে। বন্ধ হয়ে গেছে গ্রামীণ সড়ক যোগাযোগ। ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে বীজতলা। তলিয়ে গেছে মাছ চাষের শতাধিক পুকুর ও ফিশারি। পৌরসভার জকিগঞ্জের প্রধান ডাকঘর, প্রাণিসম্পদ অফিস, স্থলশুল্ক স্টেশন, জকিগঞ্জ ফাজিল সিনিয়র মাদরাসাসহ বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, বাড়িঘরে পানি ঢুকেছে। কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার ছয় ইউনিয়ন ইসলামপুর পশ্চিম, ইসলামপুর পূর্ব, তেলিখাল, ইছাকলস, উত্তর রনিখাইন ও দক্ষিণ রনিখাইনের বেশির ভাগ গ্রাম, রাস্তাঘাট ও ফসলি জমি পানির নিচে তলিয়ে গেছে। উপজেলা প্রশাসনের কর্মকর্তা ও স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা বলেছেন, বন্যায় ফসল, ঘরবাড়ি ও রাস্তাঘাট ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতির মুখে পড়েছে। একই অবস্থা সিলেটের জৈন্তাপুর উপজেলায়। জৈন্তাপুর উপজেলার নিজপাট এবং জৈন্তাপুর ইউনিয়নের অর্ধশতাধিক গ্রামের মানুষ এখন পানিবন্দি। এসব গ্রামের সঙ্গে উপজেলা সদরের সড়ক যোগাযোগও বিচ্ছিন্ন। ফসলি জমিও তলিয়ে গেছে। এ ছাড়া সিলেট নগর ও সদর উপজেলার নিচু এলাকা প্লাবিত হয়েছে। সিলেট নগরের বিভিন্ন এলাকায় পানি ঢুকেছে। ক্ষতিগ্রস্ত বিভিন্ন এলাকা পরিদর্শন করেছেন সিলেটের জেলা প্রশাসক মো. মজিবর রহমান।কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা লুসিকান্ত হাজং বলেন, ‘বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত কৃষক ও সাধারণ মানুষকে সহযোগিতা করার জন্য জেলা প্রশাসন থেকে ১২ টন চাল বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। আমরা ইউপি চেয়ারম্যানের মাধ্যমে চাল বিতরণ শুরু করেছি। কৃষকদের ফসলের ক্ষতির পরিমাণ করা হচ্ছে। ’সিলেট আবহাওয়া অফিসের জ্যেষ্ঠ আবহাওয়াবিদ সাঈদ আহমদ চৌধুরী বলেন, ‘আগামী ১৮ মে পর্যন্ত সিলেটে বৃষ্টির পূর্বাভাস রয়েছে। মাঝারি থেকে ভারি বৃষ্টি হতে পারে। বিশেষ করে রাতে বৃষ্টি বেশি হবে। ’জেলা প্রশাসক মো. মজিবর রহমান বলেছেন, ‘বন্যা কবলিত পাঁচ উপজেলায় আমরা ৭৯ মেট্রিক টন খাদ্যশস্য দিয়েছি প্রধানমন্ত্রীর মানবিক ত্রাণ তহবিল থেকে। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাদের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে উপজেলাগুলো পরিদর্শন করে ক্ষয়ক্ষতি নিরূপণ করে সে অনুযায়ী সহায়তা প্রদানের জন্য।

নবীগঞ্জের ঐতিহ্যবাহী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান জে কে সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় এর সিনিয়র শিক্ষক এবং আঞ্জুমানে আল ইসলাহ হবিগঞ্জ জেলা শাখার সহ-প্রচার সম্পাদক ও নবীগঞ্জ উপজেলা শাখার সাবেক সভাপতি মাওলানা এম এ সবুরের দাফন সম্পন্ন হয়েছে।
শনিবার (১৪ মে) বাদ জোহর বাজকাশারা হাফিজিয়া মাদরাসা সংলগ্ন মাঠে নামাজের জানাজার পর পারিবারিক কবরস্থানে মরহুমকে দাফন করা হয়।হাজারো জনতার উপস্থিতিতে মরহুম শিক্ষকের জানাজা নামাজে ইমামতি করেন, আল্লামা মুফতি কমরুদ্দিন চৌধুরী সাহেব জাদাহে ফুলতলী শিক্ষক মাওলানা এম এ সবুরকে শেষবারের মতো দেখতে হাজারো জনতা উপস্থিত হয়।এ পর্যায়ে জনস্রোতে পরিণত হয় হাফিজিয়া মাদরাসা সংলগ্ন ময়দান।জানাজায় স্থানীয় আলেমরা ছাড়াও বিভিন্ন অঞ্চল থেকে ছুটে আসেন আলেম ওলামা এবং স্কুলের সাবেক শিক্ষক শিক্ষার্থীরা ও সামাজিক, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ।জানাজা পূর্ব বক্তব্যে বক্তারা বলেন, মাওলানা এম এ সবুর সারাজীবন দ্বীনের ওপর অবিচল থেকেছেন। স্কুল ও মাদরাসার ছাত্র-শিক্ষক ও পড়ালেখার উন্নতির জন্য নিরলস পরিশ্রম করেছেন। সর্বদা সুন্নতের অনুসরণ ও তাকওয়াকে অবলম্বন করে জীবন পরিচালনা করেছেন।শুক্রবার দিবাগত রাত ৩টায় সিলেট ইবনে সিনা হাসপাতালে ইন্তেকাল করেন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৫১ বছর।উল্লেখ্য, মাওলানা এম এ সবুর দীর্ঘদিন যাবত ঐতিহ্যবাহী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান নবীগঞ্জ জে কে মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ে সিনিয়র শিক্ষক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন এছাড়া তিনি মৃত্যুর আগে পর্যন্ত বাজকাশারা হাফিজিয়া মাদ্রাসায় দারুন কেরাত চালু করে দায়িত্ব পালন করছেন। এ কারণে দেশ-বিদেশে তার অনেক ছাত্র, ও গুণগ্রাহী রয়েছে। মৃত্যু পর্যন্ত তিনি ইলম ও দ্বীনের বহু খিদমত আঞ্জাম দিয়েছেন।

নবীগঞ্জ উপজেলার ইনাতগঞ্জ ফাঁড়ির পুলিশ ৬০ পিস ইয়াবা ট্যাবলেটসহ আলাল মিয়া (৩৫) নামে এক মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করেছে। সে উপজেলার দীঘলবাক ইউনিয়নের কসবা গ্রামের তৈমুছ উল্লার পুত্র। গত বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১২ টার সময় ইনাতগঞ্জ ফাঁড়ির এএসআই লোকেশ দাশের নেতৃত্বে একদল পুলিশের টহলকালীন সময় স্থানীয় বান্দের বাজার জিরো পয়েন্টে সন্দেহ জনকভাবে আলালকে আটক করে তার দেহ তল্লাসী করা হয়। এ সময় তার সাথে থাকা ৬০ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধার করে পুলিশ। নবীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ডালিম আহমেদ সত্যতা নিশ্চিত করে জানান,তার বিরুদ্ধে মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা দায়েরের পর জেল হাজতে প্ররণ করা হয়েছে।

নবীগঞ্জ উপজেলায় মহিদা আক্তার (২০) নামে এক গৃহবধূর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। গতকাল মঙ্গলবার (১০ মে) দুপুরে উপজেলার কুর্শি ইউনিয়নের কুর্শি উত্তরপাড় এলাকায় স্বামীর বসত ঘর হতে লাশ উদ্ধার করা হয়। মহিদা আক্তার ওই গ্রামের সিএনজি চালক সৈজুল মিয়ার স্ত্রী। পুলিশ জানায়- মহিদা আক্তার শিশু সন্তানকে নিয়ে প্রতিদিনের ন্যায় নিজের শয়ন কক্ষে রাতে ঘুমিয়ে পড়েন। ভোরে স্বামী সিএনজি চালক সৈজুল মিয়া স্ত্রী মহিদাকে ঘুমন্ত অবস্থায় রেখে সিএনজিতে গ্যাস নেওয়ার জন্য আউশকান্দি গ্যাস পাম্পে চলে যান। মঙ্গলবার দুপুরে মহিদার শাশুড়ি তাদের শয়ন কক্ষে প্রবেশ করলে বসত ঘরের তীরের সাথে ঝুলন্ত অবস্থায় মহিদার দেহ দেখতে পান। পরে বিষয়টি জানাজানি হলে খবর পেয়ে নবীগঞ্জ থানার ওসি ডালিম আহমেদের নেতৃত্বে একদল পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে লাশ উদ্ধার করে। এ প্রসঙ্গে নবীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ ডালিম আহমেদ বলেন- লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য হবিগঞ্জ আধুনিক সদর হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। এ ঘটনায় মহিদার স্বামী ও পিতার বাড়ির কোনো অভিযোগ নেই মর্মে লিখিত দিয়েছেন। এবিষয়ে নবীগঞ্জ থানায় অপমৃত্যুর মামলা দায়ের করা হবে।

কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগের কার্য নিবার্হী সংসদের সিদ্ধান্ত মোতাবেক সারা দেশে উপজেলা ভিত্তিক ওর্য়াড কাউন্সিলের সম্মেলন প্রস্তুতি চলছে। এরই ধারাবাহিকতায় জেলা আওয়ামীগের নির্দেশে নবীগঞ্জ উপজেলার পৌরসভার ওর্য়াডসহ ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের ওর্য়াড কাউন্সিল ও সমচতার মাধ্যমে কমিটি গঠনের কাজ করছে। এরই মাঝে গত সোমবার  বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের কার্য নিবার্হী সংসদের সভায় দলের শভানেত্রী ও প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনা নির্দেশনা দেন গত নির্বাচনে কোন বিদ্রোহী প্রার্থী,বিদ্রোহী প্রার্থীর পক্ষে প্রচারানা চালিয়েছেন এবং কেউ দলের কাউন্সিলে অন্তর্র্ভূক্ত করা  এবং মনোনয়ন চাইতে পারবেনা এবং দলের কোন পদবী পাবেনা। প্রধান মন্ত্রীর ঘোষনার এমন সংবাদ পাওয়ার পর নবীগঞ্জ পৌরসভার বাবর বার নির্বাচিত কাউন্সিল বতর্মন প্যানেল মেয়র-১ উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ম আহবায়ক জায়েদ চৌধুরী গত সোমবার রাতে শহরের নতুন বাজার মোড়ে দলীয় নেতাকর্মীকে ফোনে বিষয়টি অবগত করেন। জায়েদ চৌধুরীর ফোন আলাপের সময় উপজেলার আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক সাইফুল জাহান চৌধুরী সেখানে উপস্থিত ছিলেন। ফোন আলাপ সাইফুল জাহান চৌধুরীর ভালো না লাগায় তার ভাই আতœীয় স্বজন ও গ্রামের লোকজন খবর দেন লাঠি সোটা ও অস্ত্র নিয়ে সাবেক এমপি খলিলুর রহমান রফির  বিবন শপিং সেন্টারের সামনে আশার জন্য। এ খবরের সাইফুল ও তার ভাই সাবেক ছাত্রদল নেতা রাজু চৌধুরী ও সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান সাজু চৌধুরীর নেতৃত্বে শতাধিক লোক রামদা, রড, দেশ্রীয় অস্ত্র-সস্ত্র নিয়ে শহরের নতুন বাজার মোড়ে অস্ত্রের মহড়া দেন। সেই সময় অস্ত্রধারীরা জায়েদ চৌধুরী নাম ধরে অকথ্য ভাষায় গালি গালাজ করেন। পরে খবর পেয়ে জায়েদ চৌধুরী তার লোকজন ও সমর্থকদেও নিয়ে শহরের মহড়া দেন। মহড়া পাল্টা মহড়ার  খবর পেয়ে নবীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ ডালিম আহমদের নেতৃত্বে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন ছিল শহরে। শহরের প্রকাশ্য অস্ত্র মহড়া থেকে ব্যবসায়ী ও পথচারীদের মাঝে আতংকে ছড়িয়ে পরে। উল্লেখ্য গত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক সাইফুল জাহান চৌধুরীর আপন ছোট ভাই জাবেদুল আলম চৌধুরী সদর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে নৌকা প্রতিকের জন্য দলীয় মনোনয়ন চান।  কিন্তু দলীয় সিদ্ধান্তে দলের মনোয়ন পান পৌর যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক হািিববুর রহমান হাবিব। দলীয় সিদ্ধান্ত উপক্ষো করে জাবেদুল আলম চৌধুরী সাজু  সতন্ত্র প্রার্থী হিসাবে নির্বাচন করেন। ওই নিবার্চনে দলীয় প্রার্থীর বিপক্ষে কাজ করার সুনিদিষ্ট প্রমান পাওয়ায় উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধান সম্পাদক পদ থেকে বহিস্কার করা সাইফুলকে। নির্বাচনের পর তার বহিস্কার আদেশ প্রতাহার করা হয়। সদ্য ওর্য়াড পর্যায়ে সম্মেলন ও কাউন্সিলে অথিতি হিসাবে উপস্থিত থেকে তিনি কাউন্সিল সম্পূর্ন করতে দেখা যায়। সাইফুল জাহান চৌধুরীর এমন অস্ত্রেও মহড়ায় আওয়ামীলীগ,যুবলীগ,ছাত্রলীগসহ অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীসহ মিশ্র প্রক্রিয়া দেখা দিয়েছে।নবীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ ডালিম আহমদ জানান ঘটনার খবর পেয়ে আমরা তাৎক্ষনিক ঘটনাস্থলে ছুটে যাই জায়েদ চৌধুরী ও সাইফুল জাহান চৌধুরী উভয়ের সাথে কথা বলে পরিস্থিতি শান্ত করে এলাকায় আইন শৃংখলা শান্তি বজায় রাখার আহবান জানাই। উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মোস্তাক আহমদ মিলু বলেন ঘটনাটি দুঃখজনক যারা প্রকাশ্য অস্ত্র নিয়ে জায়েদ চৌধুরীর বাসায় গিয়ে তার উপর হামলা করতে চেয়েছে তাদের চিহ্নিত করে আইনের আওতায়  বিচারের দাবি জানান তিনি। এব্যাপারে উপজেলা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি গিয়াস উদ্দিন আহমদ বলেন মহড়ার ঘটনাটি আমি শুনেছি তবে জায়েদ চৌধুরী  পৌর এলাকার সালামতপুর-নহরপুর ওর্য়াড কমিটি গঠন করাকে নিয়ে বাজে মন্তব্য কারার কারনে ও পারিবারিক দ্বন্দ কারনে ঘটেছে।

হবিগঞ্জ পৌরসভার পদত্যাগকারী মেয়র বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটি সমবায় বিষয়ক সম্পাদক এক বার্তায় তিনি হবিগঞ্জ জেলা বিএনপি পরিবারের সকল সদস্যসহ দেশ বিদেশে অবস্থানরত সবাইকে ঈদুল- ফিতরের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন।
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 

 

 
  1. LATEST NEWS
  2. Trending
  3. Most Popular