Sunday, 04 July 2021 06:05

নবীগঞ্জের জনতার বাজার পশুর হাটে হাজার হাজার মানুষের সমাগম ॥ মানা হয়নি স্বাস্থ্যবিধি

নিজস্ব প্রতিনিধি

দৈনিক নবীগঞ্জের ডাক 

১ জুলাই থেকে সারা দেশে কঠোর লকডাউন চললেও গতকাল শনিবার (৩রা জুলাই) নবীগঞ্জ উপজেলা প্রশাসনের তত্ত্বাবধানে পরিচালিত জনতার বাজার পশুর হাটে ছিল জনতার উপচে পড়া ভীড়। এতে মানা হয়নি স্বাস্থ্য বিধি। হাজার হাজার ক্রেতা-বিক্রেতার সমাগম হলেও কারো মুখে মাস্ক পরিলক্ষিত হয়নি। ফলে করোনা সংক্রমনের ঝুঁকি রয়েছে বলে অভিমত ব্যক্ত করেছেন সচেতন মহল।
স্থানীয় সুত্রে জানা যায়, উপজেলার দিনারপুর জনতার বাজার পশুর হাট দীর্ঘ বছর ধরে ইজারা না দিয়ে উপজেলা প্রশাসনের তত্ত্বাবধানে চলছে। গত দু’দিন ধরে নবীগঞ্জ সদরসহ উপজেলার বিভিন্ন হাট বাজারে লকডাউনের বিধি অমান্যকারীদের বিরুদ্ধে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করে অর্থদন্ড করা হচ্ছে। অথচ জনতার বাজার পশুর হাটে মাস্ক বিহীন হাজার হাজার মানুষের সমাগম হয়েছে।
জনতার বাজার পশুহাট ঢাকা সিলেট মহাসড়ক ঘেঁষা নবীগঞ্জ উপজেলার গজনাইপুর ইউনিয়নে অবস্থিত ঈদ-উল আজহাকে সামনে রেখে জনতার বাজার পশুহাট শনিবার-সোমবার বসে। সরকারি কঠোর বিধি নিষেধ ও স্বাস্থ্যবিধি উপেক্ষা করে ৩ জুলাই সকাল থেকে জনতার বাজার পশুর হাটে বিভিন্ন জেলা উপজেলা থেকে কোরবানির পশু কেনাবেচা করতে আসেন ক্রেতা-বিক্রেতারা। সামাজিক দূরত্ব ও স্বাস্থ্যবিধি না মেনে চলে কেনাবেচা। এ সময় অধিকাংশ ক্রেতা-বিক্রেতার মুখেই ছিল না মাস্ক। কারও কারও মাস্ক থাকলেও তা হয় পকেটে নতুবা থুতনির মাঝে।
গত ২ জুলাই নবীগঞ্জ পৌর এলাকার ছালাতপুরে বিশাল পশুর হাট বসে। ওই বাজারেও সামাজিক দুরত্ব ও স্বাস্থ্যবিধি মানা হয়নি।
এ ব্যাপারে দিনারপুর কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ তনুজ রায় বলেন, সরকার ও প্রশাসন যেখানে স্বাস্থ্যবিধি প্রতিপালন করতে কঠোর অবস্থানে রয়েছে সেখানে লকডাউনের মধ্যে পশুর হাট বসা লকডাউনকে প্রশ্নবিদ্ধ করছে। বাজারে স্বাস্থ্যবিধি না মানায় ভয়াবহ করোনা সংক্রমণ ছড়ানোর আশংকা রয়েছে।
মাস্ক বিহীন ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের নিকটে এমন পশুর হাট বসানোর ফলে করোনা সংক্রমন বৃদ্ধির মারাত্মক ঝুঁকি রয়েছে বলে অভিমত ব্যক্ত করেছেন উপজেলা স্বাস্থ্য ও প.প কর্মকর্তা ডাঃ আব্দুস সামাদ।
এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার শেখ মহি উদ্দিন বলেন, স্বাস্থ্য বিধি মেনে বাজার পরিচালনার জন্য বলা হয়েছে। কি কারনে তা মানা হচ্ছেনা তা খতিয়ে দেখবেন বলেও তিনি জানান।
এ প্রসঙ্গে নবীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শেখ মহিউদ্দিন বলেন, কঠোর বিধি-নিষেধের প্রজ্ঞাপনে পশুহাট নিয়ে সু-নির্দিষ্ট ভাবে কিছু বলা হয়নি। অন্যান্য সাধারণ বাজারের মতো পশুর হাটে শতভাগ স্বাস্থ্যবিধি মেনে বিকেল ৫টা পর্যন্ত চলতে পারবে, পশুহাটে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে প্রশাসনের তৎপরতা রয়েছে। বিকেল ৫টার পর পশুর হাটে যাতে কেউ না থাকে সেজন্যও প্রশাসন তৎপর রয়েছে। শনিবার বিকেল ৫টার পর জনতার বাজার পশুর হাট বন্ধ করে দেয়া হয়।

Login to post comments
  1. LATEST NEWS
  2. Trending
  3. Most Popular