Tuesday, 20 July 2021 05:11

নবীগঞ্জে ধর্ম মন্ত্রনালয়ের চিঠি নিয়ে মসজিদে,মসজিদে এসআই বিকাশ

নিজস্ব প্রতিনিধি

দৈনিক নবীগঞ্জের ডাক 

নবীগঞ্জে করোনা সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণ করতে পবিত্র ঈদুল আযহার নামাজে স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করে নামাজ আদায়ে ধর্ম মন্ত্রনালয়ের নির্দেশনা মূলক চিঠি নিয়ে পৌর এলাকার বিভিন্ন ওয়ার্ডের মসজিদে,মসজিদে বিতরণ করছেন এসআই বিকাশ দেব নাথ। সোমবার (১৯ জুলাই) নবীগঞ্জ থানার বিট নং ১৪-১,২,৩ নং ওয়ার্ডে দায়িত্বপ্রাপ্ত এসআই বিকাশ দেব নাথ এ কার্যক্রম শুরু করেন। এসময় নবীগঞ্জ পৌর এলাকার এই ৩টি ওয়ার্ডে বিভিন্ন মসজিদের সম্মানিত ইমাম, সভাপতি পদে দায়িত্বে থাকা ব্যাক্তিদের হাতে ধর্ম মন্ত্রনালয় কর্তৃক স্বাস্থ্যবিধি নির্দেশনা মূলক চিঠি তাদের হাতে তুলে দেন। পরবর্তীতে বিট এলাকায় চুরি,ডাকাতিসহ অন্যান্য অপরাধ এবং ঈদের নামাজ বা অন্য কোন ইস্যুকে কেন্দ্র করে যেন কোন সংঘর্ষের ঘটনা না ঘটে তার জন্য স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলরসহ বিভিন্ন পাড়া ও মহল্লার বিশিষ্টজনদের সাথে আলোচনা করেন এসআই বিকাশ দেব নাথ। এছাড়াও পবিত্র ঈদুল আযহার নামাজে স্বাস্থ্যবিধি মেনে নামাজ আদায় করার জন্য মুয়াসল্লিদের প্রতি অনুরোধ জানান তিনি। ঈদের নামাজে ধর্ম মন্ত্রনালয়ের নির্দেশনা মূলক চিঠি পাঠকদের জন্য তুলে ধরা হলো, মসজিদে ঈদের নামাজ আয়োজনের ক্ষেত্রে কার্পেট বিচানো যাবে না। নামাজের পুর্বে সম্পূর্ণ মসজিদ জীবানুনাশকদ্বারা জীবানু মুক্ত করতে হবে। মুসল্লিগণ প্রত্যেক নিজ দায়িত্বে জায়নামাজ নিয়ে আসবেন। প্রত্যেক নিজ বাসা থেকে অজু করে মসজিদ বা ঈদগাহে আসতে হবে এবং অজু করার সময় কমপক্ষে ১০ সেকেন্ড সাবান পানি দিয়ে হাত ধুতে হবে। করোনা ভাইরাস সংক্রমণ রোধে মসজিদ ঈদগাহে অজুর স্থান সাবান পানি ও হেন্ডসেনিটাইজার রাখতে হবে। মসজিদ ঈদগাহে মাঠে প্রবেশদ্বারে হেন্ড সেনিটাইজার হাত ধুয়ার ব্যবস্থাসহ সাবানও পানি রাখতে হবে। ঈদের নামাজের জামাতে আগত মুসল্লিকে অবশ্যই মাস্ক পড়ে আসতে হবে। মসজিদে সংরক্ষিত জায়নামাজ ওটুপি ব্যবহার করা যাবে না। ঈদের নামাজ আদায়ের সময় কাতারে দাঁড়ানোর ক্ষেত্রে সামাজিক দুরত্ব ও স্বাস্থ্যবিধি অবশ্যই অনুসরণ করে দাঁড়াতে হবে এবং এক কাতার অন্তর,অন্তর কাতার করতে হবে। শিশু, বয়োবৃদ্ধ,অসুস্থ্য ব্যাক্তি এবং অসুস্থ্যদের সেবায় নিয়জিত ব্যাক্তিবর্গ নামাজের জামাতে অংশ্র গ্রহণে নিরুসাহিত করা হলো। সর্বসাধারণের সুরক্ষা নিশ্চিত করতে স্বাস্থ্য সেবা বিভাগ, স্থানীয় প্রশাসন এবং আইন শৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণকারী বাহিনীর নির্দেশনা অনুসরন করতে হবে। করোনা ভাইরাস সংক্রমণ রোধ নিশ্চিত করে ঈদের জামাত শেষে কোলাকুলি এবং পরস্পর হাত মেলানো পরিহার করতে হবে। করোনা মহামারি এবং বৈশ্বিক মহাবিপদ হতে রক্ষা পেতে বেশি বেশি তওবা,আস্তাগফিরুল্লাহ ও কোরআন তেলাওয়াত করতে হবে এবং আমাদের কৃত অন্যায় অপরাধ এর জন্য ঈদের নামাজ শেষে মহান রাসূল আলামীনের দরবারে ক্ষমা প্রার্থনা করতে হবে। খতিব ,ইমাম,মসজিদ ঈদগাহ পরিচালনা কমিটি নির্দেশনা গুলো বাস্তবায়ন নিশ্চিত করতে হবে।
Login to post comments
  1. LATEST NEWS
  2. Trending
  3. Most Popular