Sunday, 22 September 2019 09:00

নবীগঞ্জে ৫০ শয্যা বিশিষ্ট স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে রোগী আছে ডাক্তার নেই। সাড়ে ৪ লাখ মানুষের স্বাস্থ্য সেবা ব্যাহত

✍ মোঃ নাবিদ মিয়া, প্রধান প্রতিবেদক




নানা অনিয়ম দুর্নীতে চলছে নবীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্য সেবা কার্যক্রম। ৫০ শয্যা বিশিষ্ট এই হাসপাতালে রোগী তাকলে ও ডাক্তার পাওয়া যায় না । এনিয়ে চরম ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন রোগী নিয়ে আসা অনেক স্বজন। এ যেন অবিভাবকহীন এক কর্মকান্ড। দেখার কেউ নেই। এই হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে আসা গ্রামের সহজ সরল মানুষ গুলা বুঝতেই পারে না রোগী কে দেখছেন। দায়িত্বপ্রাপ্ত মেডিকেল অফিসার না ইন্টার্নি। চলতি মাসের ২২ সেপ্টেম্বর সকাল ১১ টা থেকে ১২:৪০ মিনিটের মধ্যে সরেজমিনে নবীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ঘুরে চিকিৎসা সেবায় নিয়জিত দায়িত্বে থাকা কোনো মেডিকেল অফিসার (ডাক্তার) পাওয়া যায়নি। তাদের বদলে ইন্টার্নিদের চিকিৎসা সেবা প্রদান করার চিত্র দেখা গেছে। তবে অভিযোগ রয়েছে মেডিকেল অফিসারদের প্রত্যেকেরই নিজেস্ব প্রাইভেট চেম্বার রয়েছে। স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা নিতে আসা রোগীদের হাতে তাদের নিজেস্ব ব্যাক্তিগত চেম্ববারের ভিজিটিং কার্ড দেওয়া হয় অফিসে বসেই। তার কিছু প্রমাণ ও মিলেছে। হাসপাতালে পাওয়া গেছে ডাক্তাদের ব্যাক্তিগত ভিজিটিং কার্ড। ভুক্তভোগী সাধারণ মানুষ ও চিকিৎসা নিতে আসা রোগীরা প্রশ্ন তুলেছেন এসময় ডাক্তাররা কোথায় থাকেন? অনুসন্ধানে জানা যায়, মাত্র একজন ডাক্তার দিয়ে চলছে নবীগঞ্জ উপজেলার প্রায় সাড়ে ৪ লাখ মানষের স্বাস্থ্য সেবা। ২২ সেপ্টেম্বর দায়িত্বে ছিলেন, ড. নাজিয়া তাসনিম ও জিল্লুর রহমান তবে অবাক কান্ডের বিষয় তাদের কাউকেই চিকিৎসা সেবা প্রদানে দেখা যায়নি। তাদের বদলে ইন্টার্নি চিকিৎকসকদের দেখা যায়। এদিকে চিকিৎসা সেবা থেকে বঞ্চিত হয়ে রোগী ও স্বজনদের মধ্যে চাপা ক্ষোভের সঞ্চার সৃষ্টি হয়। উপজেলার চানপুর গ্রাম থেকে আসা আম্বিয়া নামে এক মহিলা রোগী বলেন, ২ ঘন্টা ধরে দাড়িয়ে আছি কোনো ডাক্তার পাচ্ছি না। আদিত্যপুর থেকে আসা আনন্দ দাশ বলেন, টিকেট এনেছি ডাক্তার দেখাবো এসে দেখি মহিলা ইন্টার্নি বসে আছেন। কী চিকিৎসা পাবো। বাউসা ইউনিয়নের সুন্দও আলী নামে আরেক ব্যাক্তি বলেন, কোথায় দাড়িয়ে আছি জানি না। ডাক্তার কবে আসবে তা কেউ বলতে পারছে না। এব্যাপারে জানতে চাইলে ড, জিল্লুর রহমানের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, অফিশিয়ালী কাজে ব্যস্ত থাকায় তাকে পাওয়া যায়নি। অন্য দিকে ড, নাজিয়া তাসনিমের সাথে যোগাযোগ করা সম্বভ হয়নি। এব্যাপারে জানতে চাইলে ভারপ্রাপ্ত টিএইচও আব্দুস সামাদের সাথে বার বার যোগাযোগ করার চেষ্টা করে ও তাকে পাওয়া যায়নি।

Last modified on Monday, 23 September 2019 05:25
Login to post comments
  1. LATEST NEWS
  2. Trending
  3. Most Popular